ভারতের ইঞ্জিন পেল বাংলাদেশ

ভারতের দেওয়া ‘ঈদ উপহার’ ১০টি ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিন বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছে।

দুই দেশের রেলমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মধ্যে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিন হস্তান্তর কার্যক্রম সম্পন্ন হয়। এরপর ভারত থেকে বাংলাদেশে এসে পৌঁছায়।

নতুন ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিন দেশে আসায় কিছুটা সমস্যা দূর হবে রেল যোগাযোগে। ১০টি ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিন নেওয়া হবে পার্বতীপুর ও ঈশ্বরদীতে।

সোমবার (২৭ জুলাই) বিকেলে ভারতের গেদে থেকে চুয়াডা'ঙ্গার দর্শনা জয়নগর চেকপোস্ট এলাকা দিয়ে দর্শনা আন্তর্জাতিক রেল স্টেশনে এসে পৌঁছায়।
ভারত থেকে ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিনগু'লো দর্শনা আন্তর্জাতিক রেল স্টেশনে এসে পৌঁছায়। ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিন গু'লো বিভিন্ন ধরনের ফুল দিয়ে সাজানো ছিল। ইঞ্জিন গু'লোর রং সাদা ও নীল মিশ্রণ ছিল।

দর্শনা আন্তর্জাতিক রেল স্টেশনে সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে পার্বতীপুরে ৫টি ও ঈশ্বরদীতে ৫টি ইঞ্জিন পাঠানো হবে। হুইসেল বাজিয়ে ভারতের সময় দুপুর ৩টা বিশ মিনিটে গেদে থেকে ইঞ্জিনগু'লো বাংলাদেশের উদ্দেশ্য রওনা দেয়। বিকেল ৪টা ৫ মিনিটে দর্শনা আন্তর্জাতিক রেল স্টেশনে এসে ইঞ্জিন গু'লো এসে পৌঁছালে ফুল ছিটিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়।
ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিন গ্রহণের সময় দর্শনা আন্তর্জাতিক রেল স্টেশনে উপস্থিত ছিলেন রেল ভবন ঢাকার অতিরিক্ত মহাপরিচালক(আরএস) মনজুর-উল আলম চৌধুরী,

পশ্চিম রাজশাহী রেলের মহাব্যবস্থাপক মিহির কান্তি গ্রহ, পশ্চিম রাজশাহী রেলের প্রদান প্রকৌশলী আল ফাত্তা মাসউদুর রহমান, চুয়াডা'ঙ্গা ২ আসনের সংসদ সদস্য আলি আজগর টগর, জে'লা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার, পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম, দামুড়হুদা উপজে'লা চেয়ারম্যান আলি মুনছুর বাবু, উপজে'লা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান,

দর্শনা আন্তর্জাতিক রেল ষ্টেশনের সুপারইনটেন্ড মীর লিয়াকত আলি প্রমুখ।