মূর্খরাই আওয়ামী লীগের সা'পোর্টার: ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য আইনজীবী ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ সরব। তিনি সম্প্রতি আওয়ামীবাদ নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন ফেসবুকে।

শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) তিনি নিজের ফেসবুক পেজে এই স্ট্যাটাস দেন। তার স্ট্যাটাসটি বিডি২৪লাইভের পাঠকদের জন্যে হুবুহু তুলে ধ’রা হলো: কোনো আওয়ামী লীগের সা'পোর্টারকে আমি বাই ডিফল্ট মূর্খ বলে ধরে নেই। কেউ কেউ মূর্খতার পরীক্ষা পাশ করেন কিন্তু গু'ণ্ডামি, লুণ্ঠণ করেন নাই কিংবা এই ধরনের কর্মকাণ্ডকে কামনা করে না এমন কোনো আওয়ামী আমি জীবনে দেখি নাই। চেয়ার দিয়ে পি'টিয়ে স্পীকারকে হ'ত্যা করা এই দলের আদি ঐতিহ্য। শুরু থেকেই আদিম, আনসফিষ্টিকে'টেড, প্রভিন্সিয়াল, জান্তব, ভায়োলেন্ট মানুষরা আওয়ামী লীগের ছায়াতলে এসেছে – এখনো তাই হয়। আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা থেকে ভোটার পর্যন্ত প্রত্যেকেই একই রকম ভায়োলেন্ট – কারো কারো এখনো সুযোগ আসে নাই প্রকাশ করবার।

আরিফ জেবতিক আওয়ামী লীগের একজন আগু'য়ান ফুট সোলজার বলে ধারণা আছে ফেসবুকে। সংগ্রাম পত্রিকা কাদের মোল্লাকে শ’হীদ বলায় আরিফ জেবতিকের কলীগরা যে সংগ্রাম অফিস ভাঙচুর করেছে ও পি'টিয়েছে – সেটা তিনি তীব্রভাবে সমর'্থন করেন। আমি ওনাকে পছন্দ করি এজন্যে যে আরিফ তার আওয়ামীত্ব লুকান না। পৃথিবীর যেকোনো কোনায় যে কোনো আওয়ামী এই ভাঙচুর একইভাবে সমর'্থন করবে বলে আমা'র বিশ্বা'স- অনেকেই মুখ ফুটে বলতে ল'জ্জা পান। আরিফদের যুক্তিটা হচ্ছে আমর'া তো আর যে কাউকে পিটানো সমর'্থন করছি না। রাজাকারকে শ’হীদ বললে তাকে পেটানো জায়েজ আছে।

ফ্রম রিলিজিয়াস পয়েন্ট অফ ভিউ – যে পয়েন্ট অফ ভিউ থেকে পত্রিকাটা চলে বলে পত্রিকার দাবী – কাদের মোল্লা যে একজন শ’হীদ – এই ব্যাপারে বিন্দুমাত্র তর্ক নাই।

আরিফ যেহেতু রিলিজিয়াস পয়েন্ট অফ ভিউকে ধর্তব্যে আনবেন না এবং যেহেতু তিনি তার নিজের মতকে সবার মতের ওপর স্থান দিতে অভ্যস্ত সেহেতু তিনি ভিন্ন মতের মানুষকে পেটানো হলে স্বস্তি পান। এই লোকটাকে ক্ষমতা দেন – এবং উপযুক্ত পরিবেশে ফেলেন – সে আপনাকে নিজ হাতে হ'ত্যা করতে পারবে। আপনারা যারা আমা'র এই অনুমানে বিন্দুমাত্র সন্দে'হ পোষণ করেন – তারা মিলগ্রাম এক্সপেরিমেন্টটা ভালো করে ফলো করবেন।

নিজের মনে আমা'র কোনো সন্দে'হ নেই যে এখনো যারা আরিফের মতো আওয়ামীবাদী তারা যেই লিবারেল ভ্যালুজের কথা বলেন প্রায়ই – সেগু'লো পিওর ভণ্ডামী। আওয়ামীবাদ একটা গোত্রবাদ – মানুষ 'হতে হলে এই নীচতা পরিহার করুন।