খেতে পারছে না, বাঁ হা’ত সম্পূর্ণ বেঁ’কে গেছে খালেদা জিয়ার

কা’রাব’ন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা খুবই খা’রাপ উল্লেখ করে ‘উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে অন্য কোথাও নিতে হবে। এ হাসপাতালে সেটা সম্ভব নয়’- বলে মন্তব্য করেছেন সেলিমা ইসলাম।

শুক্রবার বিকেলে ব''ঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়ার স''ঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান বোন সেলিমা ইসলাম। এ সময় তার স''ঙ্গে ছিলেন পরিবারের আরও কয়েকজন সদস্য। খালেদা জিয়ার স''ঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে বেরিয়ে সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকদের স''ঙ্গে কথা বলেন তিনি।

সেলিমা ইসলাম বলেন, ‘তার (খালেদা জিয়া) অবস্থা তো খুবই খা’রাপ। সে শুধু বমি করছে। গায়ে জ্ব’র আছে। ব্য’থায় কাতরাচ্ছে, বাম হাতটা সম্পূর্ণ বেঁ’কে গেছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্য কোথাও নিতে হবে। এ হাসপাতালে এটা সম্ভব নয়।’

হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে কেমন দেখছেন- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘তারা যে চিকিৎসা দিচ্ছে তাতে কোনো কাজ হচ্ছে না।’

পরিবারের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে কোনো আবেদন করা হবে কি-না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমর'া এখনও কোনো আবেদন করিনি। উনার যে অবস্থা, উনাকে মু’ক্তি দিয়ে উন্নত চিকিৎসার বন্দোবস্ত করতে হবে। শরীর তো খুবই খা’রাপ। সে তো ব্য’থায় কাতরাচ্ছে, তার ডায়াবেটিস আজও ১৫-তে। এভাবে কতদিন চলবে? এ হাসপাতালে তো এক বছরের কাছাকাছি সময় রয়েছে, তার শরীরের কোনো উন্নতি হচ্ছে না বরং দিনদিন অ’বনতি হচ্ছে। এজন্য আমর'া চাই তাকে উন্নত হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে।’

খালেদা জিয়ার মুক্তির বি'ষয়ে সরকার আইনের কথা বলছেন, এ ক্ষেত্রে পরিবারের পক্ষ থেকে বিশেষ কোনো আবেদন করবে কি-না, জানতে চাইলে বোন সেলিমা ইসলাম বলেন, ‘আমর'া ভাবছি,আমর'া আবেদন করব।

তবে এটা এখনও ঠিক করিনি। কারণ তার শরীরের যে অবস্থা, এ অবস্থায় বেশিদিন থাকলে তাকে জীবিত বাসায় নিয়ে যেতে পারব না।’

নির্বাচনের বি'ষয়ে কোনো বার্তা দিয়েছেন কি-না, এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘সে তো কথাই বলতে পারছে না। তবে দেশবাসীর কাছে দোয়া প্রার্থনা করেছে।’

কা’রাব’ন্দি খালেদা জিয়ার স''ঙ্গে সাক্ষাতের জন্য শুক্রবার বিকেল ৩টার পর বিএসএমএমইউ হাসপাতালে প্রবেশ করেন পরিবারের সদস্যরা। স''ঙ্গে নিয়ে যান বাসায় রান্না করা খাবার ও কিছু ফলমূল।

পরিবারের বরাত দিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদার জানান, খালেদা জিয়ার সেজো বোন সেলিমা ইসলাম, ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার, তার স্ত্রী কানিজ ফাতেমা, ও ছেলে অ'ভিক ইস্কান্দার, সাইদ ইস্কান্দারের স্ত্রী নাসরিন ইস্কান্দার। আরাফাত রহমান কোকোর শাশুড়ি ফাতেমা রেজা হাসপাতলে আসলেও সাক্ষাৎকারের তালিকায় তার নাম না থাকায় প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি।