ডিভোর্সের প্র’তিশোধ নিতে স্ত্রীর আপ'ত্তিকর ছবি ফেসবুকে

তালাক দেয়ায় সাবেক স্ত্রীর আপ'ত্তিকর অর্ধন’'গ্ন ছবি ফেসবুকের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার অ'ভিযোগে আ’দালতের করা মা’মলাটি বিচারকের নির্দেশে রোববার (২৬ জানুয়ারি) যশোর কোতোয়ালি থানায় রেকর্ড করা হয়েছে।

মা’মলাটি হয়েছে প'র্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে। আ’সামিরা হলেন ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজে’লার ঝনঝানিয়া গ্রামের ছেলে রকি আহমেদ (২৭), রকির ভাই দ্বীনার (২৪) এবং তার মা মনোয়ারা বেগম (৫০)।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, যশোর সদর উপজে’লার একটি গ্রামের এক মেয়েকে নানাভাবে ফুসলিয়ে অ’পহরণ করে ২০১৯ সালে বিয়ে করে রকি। সেই সময় ওই মেয়ের পরিবারের পক্ষ থেকে অ’পহরণের মা’মলার প্রস্তুতি নিলে আ’সামিরা প্রভাব বিস্তার করে। পরে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে সালিস মীমাংসা হয় এবং তিনি সংসার করতে থাকেন। কিন্তু রকির স্বভাবচরিত্র ভালো নয়। তাকে অন্যের শয্যাস''ঙ্গী হওয়ার জন্য চা’প দিত রকি।

তিনি রাজি না হওয়ায় ভাই ও মায়ের ইন্ধনে তার (ওই মেয়ের) কয়েকটি আপ'ত্তিকর অর্ধন’'গ্ন ছবি রকি তার মোবাইল ফোনে ধারণ করেন। বি’ষয়টি ওই মেয়ে তার পরিবারের লোকজনকে জানালে প্রায় সাত মাসে আগে তাদের বিয়ে বিচ্ছেদ ঘটে। মেয়েটি স্বেচ্ছায় রকিকে তালাক দেন।

এতে ক্ষি’'প্ত হয়ে সাবেক স্ত্রীকে ক্ষ'তি করার ষ’ড়যন্ত্র করতে থাকেন রকি ও তার পরিবারের লোকজন। পরে ওই মেয়ের অন্য জায়গায় বিয়ে হয়। এতে রকি ও তার পরিবারের লোকজন আরও ক্ষি’'প্ত হয়ে কয়েক স'প্ত াহ আগে ওই মেয়ের আপ'ত্তিকর অর্ধন’'গ্ন ছবি ফেসবুকে ফেক আইডি খুলে তা আপলোড করে।

‘শহিদুর রহমান’, ‘তোর জন্য’ এবং ‘দেবাশীষ দাস’ নামে তিনটি ফেক আইডি খুলে তা তার বর্তমান স্বামীর ফেসবুকে ট্যাগ করে ছবিগু'লো গত ২১ জানুয়ারি পোস্ট করে। এতে ওই মেয়ের মানহানি হয়।